সোমবার, ২৯ নভেম্বর ২০২১, ০৫:৪৭ পূর্বাহ্ন

জনগণের মৌলিক অধিকার পূরণ করতে চাই, আয়ুব হোসেন

দৈনিক বাংলার মুখ ডেস্ক :
  • আপডেট সময় শুক্রবার, ১৯ নভেম্বর, ২০২১
  • ৩১ বার পড়া হয়েছে

নিজেস্ব প্রতিবেদক:

আগামী ২৩শে ডিসেম্বর ঝিনাইদহ সদর উপজেলার ১৫টি ইউনিয়নে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। দলীয় প্রতীক নৌকার মাঝি হতে চেয়ারম্যান প্রাথীরা সবাই ঢাকাতে অবস্থান করছেন। এরিমধ্যে ইউপি সদস্য প্রার্থীরা বিভিন্ন পাড়া মহল্লা, চায়ের দোকান, এবং বাড়ি বাড়ি গিয়ে ভোট চাইতে শুরু করে দিয়েছেন। সবাই জনগণকে নানা ধরনের প্রতিশ্রæতি দিয়ে আশ^স্থ করছেন। তবে জনগণের চাওয়া একজন ভালো মানুষ হবে যে কিনা জনগণের সুখে হাসবে, দুঃখে কাদবে, অসময়ে তাদের পাশে গিয়ে দাড়াবে এবং তাদের মৌলিক অধিকার প্রতিষ্ঠা করবে।

সরোজমিনে সদর উপজেলার সাধুহাটি, মধুহাটি, সাগান্না, হলিধানীসহ কয়েকটি ইউনিয়নের ওয়ার্ড ঘুরে দেখা যায়, প্রতিটি ওয়ার্ডে তিন-চারজন মেম্বর পদে প্রতিদ্বন্দীতা করছেন। সবাই যে যার মত করে জনগণের মতাম মেম্বর প্রার্থী আয়ুব হোসেনত ও সমর্থন পাবারও চেষ্টা করে যাচ্ছেন। আবার যারা বর্তমানে এখনো মেম্বর হিসেবে দায়িত্বে রয়েছেন তাদেকেও দেখা যাচ্ছে নড়েচড়ে বসতে। এদের মধ্যে ২নং মধুহাটি ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডে গিয়ে দেখা যায় ভিন্ন চিত্র।

আয়ুব হোসেন নামে একজন ব্যবসায়ী তিনি এখন ৯নং ওয়ার্ডের মেম্বর প্রাথী হিসেবে নির্বাচনে মাঠে জনগণের সমর্থন নিচ্ছেন। তিনি তার এলাকায় বেশ কয়েকটি রাস্তা মেরামত, মসজিদে আর্থিক অনুদান, করোনা কালীন সময়ে গরীব ও দুস্থদের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করে ইতিমধ্যে জনগণের মনে জায়গা করে নিয়েছেন। তিনি ছাড়াও ওই ওয়ার্ডে আরো তিন জন মিনাজ, আশাফুল ও নাজমুল (লিটন) মেম্বর পদে প্রতিদ্বন্দীতা করছেন।

মধুহাটি ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের সোহরাব হোসেন নবচিত্রকে জানান, গরীব, দুস্থ ও অসহায় মানুষের জন্য পরিষদে বিভিন্ন ধরনের ভাতা আসে, যে চেয়ারম্যান ও মেম্বর হিসেবে গরীবের হক নিশ্চিত করেতে পারবে তাকেই তারা ভোট দিবে। তবে ইতিমধ্যে আয়ুব হোসেন গ্রামের কয়েটি রাস্তা মেরামত করে দিয়ে জনগণের দুর্ভোগ কমিয়েছেন। একারনে তাকেই এবার মেম্বর হিসেবে দেখতে চান তিনি।

রফিজদ্দীন মন্ডল জানান, প্রতিনিধিরা কখনো তাদের কোন প্রতিশ্রæতি রাখে না। তিনি চান যারা যাতায়াত ব্যবস্থা ভালো করবে, সরকারি দান অনুদান সঠিক লোকে পৌছে দিবে এমন লোককে প্রতিনিধি বানাতে হবে। তবে বিগত কয়েক বছরে আয়ুব হোসেনের কাজে তিনি খুশি। তাই এবার তাকে ভোট দিয়ে তাদের দাবিগুলো আদায় করতে চান।

৯নং ওয়ার্ডের মেম্বর প্রার্থী মোঃ আয়ুব হোসেন বলেন, জনপ্রতিনিধি না হয়েও জনগণের সেবা করা যায়, কিন্তু জনপ্রতিনিধি হলে জনগণের সেবা করার সুযোগ বেশি থাকে। কারন আমি বিগত কয়েক বছর ধরে এলাকার রাস্তার উন্নয়ন করেছি। মসজিদ মাদরাসায় আর্থিক ভাবে সাহায্য করেছি। তবে আমি যদি ইউপি সদস্য বা মেম্বর কিংবা জনপ্রতিনিধি হতাম তাহলে আমি বিভিন্ন দপ্তর থেকে জনগণের দাবিদাবা আদায় করে নিয়ে আসতে পরতাম।

পরিষদের নির্ধারিত কাজ ছাড়াও বিভিন্ন উন্নয়ন মূলক সংস্থা থেকে কাজ আদায় করে এলাকার জনগণের মাঝে বিলিয়ে দিতে পারতাম। তবে আমি যদি নির্বাচনে জয়লাভ করি সর্বপ্রথম কাজ হবে জনগণের মৌলিক অধিকার গুলো নিশ্চিত করা। জনপ্রতিনিধি হবে জনগণের আমি এই ¯েøাগানেই মানুষের মাঝে ভোট ভিক্ষা করছি।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো পোস্ট
© All rights reserved © 2021 dainikbanglarmukh
Theme Developed BY ThemesBazar.Com