মঙ্গলবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১১:২৯ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
মহেশপুরে ৪ নং স্বরুপপুর ইউনিয়ন এর মানুষের হৃদয়ে স্থান করে নিয়েছেন চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী দিপু স্বরুপপুর ইউনিয়নের গরীব-দুঃখী মানুষের আস্থার ঠিকানা বশির আহম্মেদ ভারতীয় নাগরিকত্ব নিয়েই হলেন ইউপি চেয়ারম্যান, স্ত্রীও করছেন সরকারি চাকুরী উবার-পাঠাও চালকদের ধর্মঘটের ডাক খুলনায় করোনায় উপসর্গে নবনির্বাচিত ইউপি সদস্যের ইন্তেকাল ৪ নং স্বরুপপুর ইউনিয়নের যুবসমাজের আইডিয়াল – বশির আহম্মেদ আগামী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ৪ নং স্বরুপপুর ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের অন্যতম নেতা বশির আহম্মেদ কে চেয়ারম্যান হিসাবে দেখতে চায় এলাকাবাসী। মহেশপুরে ৪ নং স্বরুপপুর ইউনিয়নের, সর্বস্তরের মানুষের ভালোবাসার আর এক নাম  বশির আহম্মেদ। মহেশপুর সীমান্তে অবৈধভাবে বাংলাদেশে প্রবেশ করায় আটক ১১ আগামী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে সামনে রেখে জনসংযোগে ব্যস্ত-৪নং স্বরূপপুর ইউনিয়নের নৌকা মনোনয়ন প্রত্যাশি বশির আহম্মেদ

সাংবাদিক সম্মেলনে অভিমত ঢাকা মহানগরীতে অযান্ত্রীক পরিবহণের অনুমোদন প্রক্রিয়া অসংগতিপূর্ণ

দৈনিক বাংলার মুখ ডেস্ক :
  • আপডেট সময় রবিবার, ১৩ সেপ্টেম্বর, ২০২০
  • ৮৬ বার পড়া হয়েছে

 

এস এম জহিরুল ইসলাম: ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন নগরীর অযান্ত্রিক যানবাহনের অনুমোদন দেওয়ার জন্য গত ০৯ সেপ্টেম্বর বিভিন্ন জাতীয় দৈনিকে গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে। এই গণবিজ্ঞপ্তিতে বেশকিছু অসংগতি রয়েছে বলে লক্ষ করেছেন রিকসার মালিক-শ্রমিক। এ বিষয়ে রবিবার বিকালে সাংবাদিক সম্মেলন করেন বাংলাদেশ রিকসা-ভ্যান মালিক শ্রমিক সংগ্রাম পরিষদ। সাংবাদিক সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন সংগ্রাম পরিষদের সদস্য সচিব মোঃ ইনসুর আলী। এ সময় উপস্থিত ছিলেন সংগ্রাম পরিষদের যুগ্ম আহ্বায়ক আরজু আহম্মেদ, মোঃ হারুন অর রশিদ, আর এ জামান, মোঃ আবুল হোসেন, মোঃ রেজাউল করিম, শহর আলী প্রমুখ নেতৃবৃন্দ।
সাংবাদিক সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে বলা হয়, গত ০৯ই সেপ্টেম্বর ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন কর্তৃক কয়েকটি জাতীয় দৈনিকে অযান্ত্রিক যানবাহন নিবন্ধন সংক্রান্ত গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশিত হয়। বিজ্ঞপ্তিতে ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের মাননীয় মেয়র একটি যুগান্তকারী পদক্ষেপ গ্রহণ করায় বাংলাদেশ রিকসা-ভ্যান মালিক-শ্রমিক সংগ্রাম পরিষদের পক্ষ থেকে অভিনন্দন জানানো হয়। তবে বিজ্ঞপ্তিতে ১৩ সেপ্টেম্বর থেকে ২৭শে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত যে সময় দেওয়া হয়েছে বা যে প্রক্রিয়ায় ফরম সংগ্রহ ও জমাদানের বিষয় উল্লেখ করা হয়েছে তা প্রকৃত রিকসা-ভ্যান মালিক-শ্রমিকদের জন্য প্রযোজ্য নয়।
সিটি কর্পোরেশন বিভক্ত হওয়ার পর ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন একবার নবায়ন কার্যক্রম পরিচালনা করেছেন যার মেয়াদ ৬ জুন ২০২০ইং তারিখ শেষ হয়েছে। গত নবায়নের সময়, ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন কর্তৃপক্ষ দীর্ঘ দিনের পুরাতন মালিকানা ব্লু-বুক বাতিল করে নতুন ব্লু-বুক দেওয়ার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছিল কিন্তু অদ্যবধি এ পর্যন্ত ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোশেনের নামে ৫২,৭১৪টি রিকসা ও ৫,৬৮০টি ভ্যানের মালিকানা ব্লু-বুক প্রদান করে নাই। ইতিমধ্যে অনেক মালিকানা ব্লু-বুক নষ্ট হয়ে গিয়েছে।
বর্তমান ঢাকা ঢাকা সিটি দক্ষিণ কর্পোরেশনের মাননীয় মেয়র মহোদয় রিকসা-ভ্যান শিল্পে অরাজকতা বন্ধে যে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছেন তা অতীতের কোন মেয়র করেন নাই। বিশেষ করে রিকসা-ভ্যান মালিক-শ্রমিকরা স্বল্প শিক্ষায় শিক্ষিত এবং বিগত সাত মাস যাবত মহামারী কোভিড-১৯ এর কারণে অধিকাংশ রিকসা-ভ্যান বন্ধ ছিল। যার ফলে অসংখ্যা রিকসা-ভ্যান মালিকেরা তাদের গ্যারেজ ভাড়া ও বাসা ভাড়া দিতে পারে নাই এমতাবস্থায় তারা মানবেতর জীবন-যাপন করছে। মাননীয় মেয়র মহোদ্বয়, ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনকে যানযট মুক্ত ও আধুনিক শহর গড়ার লক্ষ্যে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। মাননীয় মেয়র মহোদয়ের এই মহৎ উদ্দেশ্য বাস্তবায়নে বাংলাদেশ রিকসা-ভ্যান মালিক-শ্রমিক সংগ্রাম পরিষদ সর্বাত্মকভাবে সহযোগীতা করতে প্রস্তুত রয়েছে।
সাংবাদিক সম্মেলনের মাধ্যমে বলেন, গণবিজ্ঞপ্তিতে প্রতিটি আবেদন পত্রের মূল্য ১০০ টাকা নির্ধারন করা হয়েছে। কিন্তু নবায়ন ফি কত তা নির্ধারণ করা হয় নাই। ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের রিকসা-ভ্যানের মালিকানা লাইসেন্স নিবন্ধন/নবায়ন/মালিকানা পরিবর্তনের জন্য আবেদনের যে প্রক্রিয়া করেছেন তাতে করে প্রকৃত রিকসা-ভ্যান মালিক-শ্রমিকরা ইচ্ছা থাকলেও তারা লাইসেন্স এর মালিকানা পাবে কি না তাতে সন্দেহ আছে। কেননা বর্তমান প্রেক্ষাপট অনুযায়ী রিকসা-ভ্যান মালিক-শ্রমিকদের ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন কর্র্তৃক অনুমোদিত অতীতের বৈধ লাইসেন্সগুলো নবায়নের জন্য নির্ধারিত স্পষ্ট টাকার পরিমান উল্লেখ নাই যাহা অতীতের সকল গণবিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ ছিল। তাছাড়া রিকসা-ভ্যান মালিক-শ্রমিকরা দীর্ঘ সাত-আট মাস যাবত কোভিড-১৯ এর কারণে পরিবার-পরিজন নিয়ে মানবেতর জীবন কাটাচ্ছে যা আপনাদের কারোই অজানা নয়। কিন্তু ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের গণবিজ্ঞতিতে আগামী ১৩ সেপ্টেম্বর থেকে ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০ইং তারিখের মধ্যে ফরম ক্রয় ও জমা দেওয়ার কথা বলা হয়েছে। আমরা যারা রিকসা-ভ্যান মালিক-শ্রমিকর আছি, এমতাবস্থায় ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের মাননীয় মেয়র মহোদয়ের কাছে আমাদের সংগঠনের পক্ষ থেকে জানিয়ে দিতে চাই যে, অতীতের সকল রিকসা-ভ্যান মালিক শ্রমিকদের ন্যায্য অধিকার আদায়ে এটি’ই একমাত্র সংগঠন।
সাংবাদিক সম্মেলনে সংগ্রাম পরিষদ গণবিজ্ঞপ্তির বিষয়ে ৬ দফা দাবী উপস্থাপন করেন। দাবীগুলো হলো- পূর্বঘোষিত ১৩ সেপ্টম্বর থেকে ২৭ সেপ্টম্বরের মধ্যে আবেদন জমা দেওয়ার তারিখ বর্ধিত করে ৩০শে নভেম্বর ২০২০ইং করতে হবে, ঢাকা সিটি কর্পোরেশনের বৈধ ৫২,৭১৫টি রিকসা ও ৫,৮৬০টি ভ্যানের লাইসেন্স নবায়ন করতে হবে এবং স্ব স্ব ব্লু-বুকের বিপরীতে পৃথক ফরম বিতরণ কাউন্টার করতে হবে, লাইসেন্স নবায়ন সমাপ্ত করে নাম জারির ব্যবস্থা করতে হবে, রাজধানীর সড়কের ধারণ ক্ষমতা বিবেচনা পূর্বক রিকসা-ভ্যানের নতুন লাইসেন্স ইস্যু করতে হবে, গত ০৬/১১/২০০১ইং তারিখের সমঝোতা চুক্তির আলোকে সংগ্রাম পরিষদের মাধ্যমে রিকসা-ভ্যানের মালিকানা ফরম প্রদান করতে হবে এবং সহজ শর্তে রিকসা-ভান চালকদের লাইসেন্স বিতরণ করতে হবে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো পোস্ট
© All rights reserved © 2021 dainikbanglarmukh
Theme Developed BY ThemesBazar.Com