সোমবার, ১৮ অক্টোবর ২০২১, ০৬:৪৯ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
মনোনয়ন ফরম জমা দিলেন স্বরুপপুর  ইউপির আ’লীগ মনোনীত প্রার্থী- মিজানুর রহমান  ঝিনাইদহে বিএমএসএফ’র ১৪ দফা নিয়ে সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময় সভা আহত প্রধান শিক্ষকের পাশে দাঁড়াতে গোপালগঞ্জে যাচ্ছেন শিক্ষক সমিতির শীর্ষ নেতৃবৃন্দ। মহেশপুরে বিএনপির ২ টি ইউনিয়নে দ্বিবার্ষিক সম্মেলণ অনুষ্ঠিত। মহেশপুরে ৪ নং স্বরুপপুর  ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান এডভোকেট.  হুমায়ন কবির  কে আবারও চেয়ারম্যান হিসাবে দেখতে চায় এলাকাবাসী। ঝিনাইদহের মহেশপুরে পরিবেশ অধিদপ্তরের পরিদর্শক জাহিদ হাসান লাঞ্চিত  মহেশপুরে ৪ নং স্বরুপপুর ইউনিয়ন এর মানুষের হৃদয়ে স্থান করে নিয়েছেন চেয়ারম্যান মনোনয়ন প্রত্যাশী আব্দুল হান্নান মহেশপুরে চেয়ারম্যান মনোনয়ন প্রত্যাশী আব্দুল হান্নানের গণসংযোগ রাতের প্রহরী অনুভূতি

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দেওয়া নন এমপিও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক ও কর্মচারীর প্রণোদনার অর্থ বিতরণে অনিয়ম করেছেন হাতিয়া কমিউনিটি কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মামুন

দৈনিক বাংলার মুখ ডেস্ক :
  • আপডেট সময় রবিবার, ২৩ আগস্ট, ২০২০
  • ৯৮ বার পড়া হয়েছে

 

বাংলার মুখ ডেস্কঃ মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার মহৎ উদ্যোগের অংশ হিসেবে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী নন এমপিও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক ও কর্মচারীরদের আর্থিক অস্বচ্ছতা ও দূরাবস্থা দূর করতে বাংলাদেশের সকল নন এমপিও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সকল শিক্ষক , কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের জন আর্থিক প্রণোদনা প্রদান করেন ।

এই আর্থিক প্রণোদনা পেয়ে শিক্ষক ও কর্মচারীগণ প্রফুল্ল ও তাদের পারিবারিক ও প্রাতিষ্ঠানিক কর্মকান্ডে অধিক মনোযোগী হয়েছেন।
তারা মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর এই বিশেষ উদ্যোগ কে সাধুবাদ ও আন্তরিক অভিনন্দন জানিয়েছেন । তারা বলেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর এই সহায়তা নন এমপিও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের জন্য বাংলাদেশের ইতিহাসে মাইলফলক হয়ে থাকবে।

কিন্তু অত্যন্ত দুঃখের সাথে হাতিয়া কমিউনিটি কলেজের কয়েকজন শিক্ষক ও কর্মচারী বলেন ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মামুন মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া প্রণোদনা থেকে তাদের ইচ্ছাকৃত বাদ দেয়।

এবং তারা আরো বলেন বিভিন্ন ভুয়া নাম দিয়ে মামুন সরকারি টাকা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার এর নিকট থেকে নিয়ে যান।

হাতিয়া কমিউনিটি কলেজে শুরু থেকে নিয়োগকৃত নূর ইসলাম ও আফছার উদ্দিন বলেন আমাদের টাকা ও দেওয়া হয় নাই। আফছার বলেন সিরাজ উদ্দিন নামক একজন প্রধান শিক্ষক তিনি কাউনিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের কর্মরত আরো ৩ বছর আগে থেকে তার নাম দিয়ে ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর আর্থিক প্রণোদনা নিজের কাছে রেখে দেন। আফছার উদ্দিনের কথার প্রেক্ষিতে প্রধান শিক্ষক সিরাজ উদ্দিন কে মোবাইল করলে তিনি বলেন আমার সাথে কলেজের বর্তমানে কোন সম্পৃক্ততা নাই । মামুন আমার নাম দিয়ে অন্য লোক দিয়ে টাকা নিয়ে যায়। নুর ইসলাম বলেন আমি কলেজে পরিচালনা কমিটির শিক্ষক প্রতিনিধি হওয়া সত্বেও আমার নাম নেই প্রণোদনার তালিকায় ।

আফছার উদ্দিন বলেন ২০১৯ এর ব্যানবেইস জরিপ অনুসরণ না করে ভুয়া নাম বসিয়ে মামুন আমাদের টাকা নিজের পকেটে নিয়ে নেন। এই ছাড়া ও অধ্যক্ষ মামুন (ভারপ্রাপ্ত) কলেজের ছাত্রীদের জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর উপবৃত্তির কিছু টাকা শিক্ষার্থীদের নামের পাশে নিজের রেজিষ্ট্রেশনকৃত মোবাইল নম্বর বসিয়ে সরকারি টাকা নিজে দূর্নীতি করে তার নিজের কাছে রেখে দেন।

আফছার উদ্দিন এর নিকট থেকে প্রয়োজনীয় চাওয়া হলে তিনি সকল ডকুমেন্টস জাতীয় দৈনিক পত্রিকা বাংলার মুখের হেড়অফিসে সংরক্ষণের জন্য একসেট দিয়ে দেন।

জাতীয় দৈনিক পত্রিকা বাংলার মুখ এর বার্তা সম্পাদক হাতিয়া উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার এর সাথে সরাসরি এই নিয়মের বিষয়ে সাক্ষাৎ করলে তিনি বলেন ইচ্ছাকৃতভাবে নিয়োগকৃত কোন শিক্ষক ও কর্মচারীর নাম বাদ দিয়ে থাকলে অধ্যক্ষ মামুনের বিরুদ্ধে অবশ্যই বিধি মোতাবেক আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে ।

হাতিয়া কমিউনিটি কলেজের সরকারি প্রণোদনা থেকে অধ্যক্ষ মামুন (ভারপ্রাপ্ত) কৃর্তক বাদ পড়া শিক্ষক ও কর্মচারীবৃন্দ জাতীয় এই পত্রিকার মাধ্যমে কৃর্তপক্ষের সদয় বিবেচনার জন্য অনুরোধ জানান। কারণ ননএমপিও প্রতিষ্ঠান হওয়ার কারণে তারা চরম আর্থিক সংকটে আছেন।

হাতিয়া কমিউনিটি কলেজের প্রতিষ্ঠাতা ও দাতা প্রকৌশলী আমিরুল মোমিন বাবলু সাহেবের সাথে মোবাইলে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন আমার কাছে কয়েকজন শিক্ষক ও কর্মচারী সরকারি প্রণোদনা না পাওয়ার বিষয়ে অভিযোগ করেন।
আমি তাদেরকে উর্ধ্বতন কৃর্তপক্ষের নিকট বিষয়টি জানাতে বলি। হাতিয়া কমিউনিটি কলেজ প্রকৌশলী আমিরুল মোমিন বাবলু সাহেব একক অর্থায়নে দক্ষিণাঞ্চলের বৃহৎ জনগোষ্ঠীর শিক্ষার প্রসাররের লক্ষ্যে প্রতিষ্ঠা করেন।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো পোস্ট
© All rights reserved © 2021 dainikbanglarmukh
Theme Developed BY ThemesBazar.Com