সোমবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০২:০৫ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
আগামী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ৪ নং স্বরুপপুর ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের অন্যতম নেতা বশির আহম্মেদ কে চেয়ারম্যান হিসাবে দেখতে চায় এলাকাবাসী। মহেশপুরে ৪ নং স্বরুপপুর ইউনিয়নের, সর্বস্তরের মানুষের ভালোবাসার আর এক নাম  বশির আহম্মেদ। মহেশপুর সীমান্তে অবৈধভাবে বাংলাদেশে প্রবেশ করায় আটক ১১ আগামী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে সামনে রেখে জনসংযোগে ব্যস্ত-৪নং স্বরূপপুর ইউনিয়নের নৌকা মনোনয়ন প্রত্যাশি বশির আহম্মেদ “স্মৃতিচারণ” ২য় শ্রেণীর দুই ছাত্রীকে যৌন হয়রানি অভিযোগ উঠেছে মাদ্রাসা শিক্ষকের বিরুদ্ধে,শিক্ষক পলাতক! মহেশপুরে ইজিবাইক চালককে পিটিয়ে হত্যা ১৪/০৯/২০২১ তারিখ রাউজানে চট্টগ্রাম জেলা কার্যালয় এর অভিযানে রাউজানে একাধিক মদের মামলার আসামী ১৫ লিটার মদ সহ গ্রেফতার ০১ জন, মামলা দায়েরঃ দ্বীপ উন্নয়ন সংস্থার কর্মপ্রচেষ্টায় প্রাণী সুরক্ষাসেবা কার্যক্রম। জীবননগরে ওষুধের দাম বেশি নেওয়ার অভিযোগ !!!

হাতিয়ার জনপ্রিয় অনলাইন সংগঠন “দ্বীপাঞ্চল হাতিয়া” ও দ্বীপ দরদি কয়েকজন মানবিক সূর্যসন্তানের আর্থিক সহযোগিতায় বাসস্থান পেল আরেকটি অসহায় পরিবার

দৈনিক বাংলার মুখ ডেস্ক :
  • আপডেট সময় শনিবার, ১ আগস্ট, ২০২০
  • ১৩৪ বার পড়া হয়েছে

 

বাংলার মুখ ডেক্স  :

নোয়াখালীর হাতিয়া উপজেলার, মাইচরা গ্রামের
হতদরিদ্র আব্দুল হাই এর ৮ জনের সংসারের একমাত্র উপার্জনের মাধ্যম ছিল রিকসা। সারাটা জীবন দু ‘ পায়ে রিকশার প্যাডেল ঘুরিয়ে কোন রকমে দু মুঠো অন্ন জোগাড় করতেই যেন জীবন যাই অবস্থা। আর্থিক দৈন্যতা আর শারীরিক অসুস্থতার কারণে খড়কুড়ো আর পলিথিন মুড়িয়ে ভাঙ্গাচোরা একটা কুড়ঘরের মধ্যে বৃষ্টিতে ভিজে, রোধে পুড়ে মানুষ হয়েও পোকামাকড়ের ন্যায় জীবন যাপন করে আসছে বছরের পর বছর।

 

একদিন নিজের একটা ঘর হবে,স্রেফ এই স্বপ্ন দেখতে দেখতে জীবনের সায়াহ্নে এসে মানুষটা আজ কর্মশক্তি হারিয়ে অনেকটা নীরব, নিস্তব্ধ হয়ে গেছে। একটা ভালো ঘরে ঘুমানোর স্বপ্ন দেখে দেখে নির্ঘুম কাটিয়েছে কতটা রাত পুরোপুরি স্বার্থপর ও আত্মকেন্দ্রিক এই সমাজ ব্যবস্থায় তার খবর কে রেখেছে কবে?

সে ভাবে এই রাত একদিন কেটে যাবে, ভোরের আলোয় আলোকিত হবে তাদের সংসার, সেই ভোর আর কোনদিন তাদের জীবনে আসেনা,রোগ -শোক, অভাব, অনটন, ক্ষুদা, মন্দা আর দারিদ্র্যতা তাদের সংসারজুড়ে এমনভাবেই আষ্টেপৃষ্ঠে থাকে, একেকটা ভোর রাতের অন্ধকারের চেয়েও আর গভীর অন্ধকার নিয়ে হাজির হয়।

পৃথিবীতে কতো কতো রাজপ্রাসাদ অথচ তাদের নিশ্চিন্তে থাকার মত একটা ঘর নাই।

আবদুল হাই পরিবারের এমন বিভীষিকাময় অবস্থার কথা জানতে পেরে হাতিয়ার বৃহত্তম ও জনপ্রিয় মানবিক সংগঠন ‘দ্বীপাঞ্চল হাতিয়া এবং দ্বীপ প্রেমি কয়েকজন সূর্য সন্তান অসহায় মানুষটার স্বপ্নের সারথী হয়ে পাশে এসে দাড়িয়েছে।

সেচ্ছাসেবী সংগঠনটি তাকে পুরাতন ঘরের পাশে একাট পরিপূর্ণ দুইরুমের টিনের ঘর তৈরি করে দেওয়ায় জীবনের শেষ অবস্থায় এসে অনেকটা সূখের হাসি হাসতে দেখা গেছে তাকে।

উল্লেখ্য, দ্বীপাঞ্চল হাতিয়া সংগঠনটি প্রতিষ্ঠার পর থেকে আজ অবধি হতদরিদ্র ও নিপীড়িত মানুষের মুক্তির লক্ষ্যে অবিরাম কাজ যাচ্ছে।

তারই ধারাবাহিকতায় সম্প্রতি তারা মানবতার সুলতান খ্যাত
এএসপি শামীম আনোয়ার সিলেট র‍্যাব ৯ এর অধিনায়ক হিসেবে দ্বায়িত্ব কালীন সময়ে
সিলেট শ্রীমঙ্গল একটি জরাজীর্ণ ঘর স্হানীয়দের সহযোগিতা নিয়ে কুটির গড়ে তুলে। কুটির উদ্ভোদনী অনুষ্ঠানে
শামীম আনোয়ার স্যার সকলের কাছে উদাত্ত আহ্বান জানান প্রতিবেশীর জরাজীর্ণ ঘরকে সবাই মিলে একটি কুটির গড়ে তোলার।
সেই ধারাবাহিকতায় দ্বীপাঞ্চল হাতিয়া অনলাইন গ্রুপের কিছু এডমিন শামীম স্যার এর সাথে যোগাযোগ করে অনুমতি ক্রমে
‘বাংলাদেশ কুঠির হাতিয়া ‘ নামে একটি সূদুরপ্রসারী প্রকল্প হাতে নেয়, দ্বীপের ঘরহীন মানুষদের খুঁজে বের করে তাদেরকে একটি নিরাপদ আবাসস্থল তৈরি করে দিচ্ছে সংগঠনটি।

ইতিপূর্বে হাতিয়ার তমরদ্দি ইউনিয়নে আরো চারটি গৃহহীন পরিবারকে অনুরুপভাবে ঘর তৈরি করে দিতে সক্ষম হয়েছে সংগঠনটির সদস্যদের আন্তরিক প্রচেষ্টায়।

সম্প্রতি রিক্সাচালক আব্দুল হায়কে আনুষ্ঠানিক ভাবে নতুন তৈরী ঘরটি হস্তান্তর করা হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো: রেজাউল করিম। উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ কুঠির এর হাতিয়ার
পরিচালনার দায়িত্বে নিয়োজিত মুশফিকুর রহমান মঞ্জু, ফজলে এলাহী, নজরুল ইসলাম, হৃরয় এলাহী প্রমুখ।

বাংলাদেশ কুটির গড়ে তোলার আহবানকারী এএসপি শামীম আনোয়ার স্যার বলেন

আমি জানি ‘পৃথিবীতে মানুষের নিজের একটা ঘর থাকার চাইতেও আনন্দের আর কিছু নেই। একটি অসহায় পরিবার আজ থেকে শান্তিতে ঘুমাতে পারবে এই বোধ, এই উপলব্ধি আমাকে অগ্রীম ঈদের আনন্দ দেয়।আমি অবিভূত এবং কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি দ্বীপাঞ্চল হাতিয়া এডমিন প্যানেল এবং যারা দানের হাতকে প্রসারিত করেছেন তাদেরকে।
আসলে সমাজের বিত্তবানরা এগিয়ে আসলে সমাজে গৃহহীনদের পুনর্বাসন করা সম্ভব ইনশাআল্লাহ।

এই বিষয়ে দ্বীপাঞ্চল হাতিয়ার এডমিন সৌদি আরব প্রবাসী জনাব ওমায়ের রহমান ভুটো বলেন, জীবিকার তাগিদে বিদেশে থাকলেও মুলত আমাদের আত্মা পড়ে থাকে জন্মভূমি হাতিয়াতে। যখন শুনি আমার জন্মভূমির কোন মানুষ স্রেফ একটা ঘরের অভাবে কস্টে জীবন যাপন করছেন তখন সেই কস্ট আমাদেরকেও ভীষণভাবে পীড়া দেয়।

 

মানবিকবোধ থেকে আমরা আমাদের সর্বোচ্চটা দিয়ে চেষ্টা করি হতদরিদ্র মানুষের মুখে হাসি ফুটাতে। তাদের হাসি আমাদের দুরদেশে ভালো থাকতে সহায়তা করে।

আমরা আমাদের এই প্রকল্প অনেকদুর এগিয়ে নিয়ে যাব। সকলে আমাদের জন্য দোয়া করবেন।
দ্বীপাঞ্চল হাতিয়া অনলাইন গ্রুপের ডাকে সাড়া দিয়ে বাংলাদেশ কুটির হাতিয়া প্রকল্প
এগিয়ে এসেছেন আমরা আপনাদের কাছে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি।
ইনশাআল্লাহ আগামীতে ও আপনারা আমাদের পাশে থাকবেন।

খুচরা পয়সা গুলো জড়ো কর।
বাংলাদেশ কুটির গড়ে তোল।
এই স্লোগানে আমরা এগিয়ে যেতে চাই বহু দূর।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো পোস্ট
© All rights reserved © 2021 dainikbanglarmukh
Theme Developed BY ThemesBazar.Com