রবিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৭:১০ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
আগামী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ৪ নং স্বরুপপুর ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের অন্যতম নেতা বশির আহম্মেদ কে চেয়ারম্যান হিসাবে দেখতে চায় এলাকাবাসী। মহেশপুরে ৪ নং স্বরুপপুর ইউনিয়নের, সর্বস্তরের মানুষের ভালোবাসার আর এক নাম  বশির আহম্মেদ। মহেশপুর সীমান্তে অবৈধভাবে বাংলাদেশে প্রবেশ করায় আটক ১১ আগামী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে সামনে রেখে জনসংযোগে ব্যস্ত-৪নং স্বরূপপুর ইউনিয়নের নৌকা মনোনয়ন প্রত্যাশি বশির আহম্মেদ “স্মৃতিচারণ” ২য় শ্রেণীর দুই ছাত্রীকে যৌন হয়রানি অভিযোগ উঠেছে মাদ্রাসা শিক্ষকের বিরুদ্ধে,শিক্ষক পলাতক! মহেশপুরে ইজিবাইক চালককে পিটিয়ে হত্যা ১৪/০৯/২০২১ তারিখ রাউজানে চট্টগ্রাম জেলা কার্যালয় এর অভিযানে রাউজানে একাধিক মদের মামলার আসামী ১৫ লিটার মদ সহ গ্রেফতার ০১ জন, মামলা দায়েরঃ দ্বীপ উন্নয়ন সংস্থার কর্মপ্রচেষ্টায় প্রাণী সুরক্ষাসেবা কার্যক্রম। জীবননগরে ওষুধের দাম বেশি নেওয়ার অভিযোগ !!!

নির্বাচন সুষ্ঠু করতে পুলিশের ভূমিকা গুরুত্বপূর্ণ

দৈনিক বাংলার মুখ ডেস্ক :
  • আপডেট সময় শুক্রবার, ৭ ডিসেম্বর, ২০১৮
  • ৩৫৭ বার পড়া হয়েছে

বাংলার মুখ ডেক্স:
আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী আমাদের একটি জাতীয় সম্পদ। তারা প্রজাতন্ত্রের সেবক। জনগণের জানমালের রক্ষক। দেশের আইনশৃঙ্খলা রক্ষা, জঙ্গিবাদ-নাশকতা ও সন্ত্রাস নির্মূল, মাদক ব্যবসা বন্ধ, আর্থ-সামাজিক উন্নয়ন ও জনকল্যাণমূলক কর্মকাণ্ডে তাদের রয়েছে গৌরবময় অবদান। এই সম্পদের যথাযথ ও সঠিক প্রয়োগ আমাদের কাক্সিক্ষত উন্নয়নে বড় ধরনের ভূমিকা রাখতে পারে। কাজেই এই মূল্যবান সম্পদকে রাজনীতিকরণ করে কারও ব্যক্তি বা দলীয় স্বার্থে ব্যবহার করা অনুচিত।

দুঃখজনক হলেও সত্য, যখন যারাই ক্ষমতায় এসেছে, তখন তারা নিজেদের স্বার্থে বিরোধী শক্তিকে দমন-পীড়নে এই বাহিনীকে ব্যবহার করেছে। আবার এটাও ঠিক, এই বাহিনীর সুযোগ সন্ধানী ও দুর্নীতিপরায়ণ কিছু সদস্য বিভিন্ন ইস্যুতে নিজেদের স্বার্থ হাসিল করার জন্য পেশিশক্তির যোগসাজশে ক্ষমতার বাইরে থাকা বিরোধীদের মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি করেছে। করেছে কোটি কোটি টাকার বাণিজ্য।

নির্বাচন কমিশন আগামী নির্বাচন সামনে রেখে দেশবাসীকে একটি অবাধ, সুষ্ঠু, নিরপেক্ষ ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচন উপহার দেয়ার জন্য সম্প্রতি আইনশৃঙ্খলা বিষয়ক বিশেষ সভায় এই বাহিনীকে নিরপেক্ষভাবে কাজ করার নির্দেশ দিয়েছে। প্রশ্ন হল, ক্ষমতাসীন শক্তির বলয় পেরিয়ে তারা অতীতের সব গ্লানি মুছে ফেলে নিরপেক্ষভাবে নির্বাচনের অসমতল মাঠ সমতল করতে পারবে কি? নাকি চাকরি রক্ষা, পদোন্নতি, গ্রেফতার ও অর্থ বাণিজ্য অথবা মামলা-হামলায় বিরোধীদের ভোটের মাঠ থেকে বিতাড়ন করার কাজে তৎপর থাকবে?

বিরোধী জোট অভিযোগ করে আসছে, সরকার ক্ষমতায় টিকে থাকতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর দুর্নীতিপরায়ণ সদস্যদের ব্যবহার করে বিরোধী নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে একের পর এক মিথ্যা, বানোয়াট ও ভৌতিক মামলা দিচ্ছে। কারাবন্দি করছে। অনেককে বাড়িঘর, জন্মভূমি ও নির্বাচনী মাঠ ছাড়তে বাধ্য করছে। অনেকে আতঙ্কে আছেন কখন কার দেয়া তালিকায় তাদের উঠিয়ে নিয়ে হয়। ভোটের আর এক মাসও বাকি নেই। এ অবস্থা চলতে থাকলে গাজীপুর ও বরিশাল সিটি নির্বাচনের মতো বিরোধীরা ভোটের ওয়ার্ক করতে পারবে না।

সাধারণ মানুষ ১০ বছর পর ভোটের প্রকৃত যে স্বাদ গ্রহণে অধীর আগ্রহে আছে তা থেকে তারা বঞ্চিত হবেন। আইনশৃঙ্খলা বিষয়ক বিশেষ সভায় ইসি সচিবের প্রত্যাশা ‘পুলিশের আন্তরিক প্রচেষ্টায় শান্তিপূর্ণ নির্বাচন হবে।’ সিইসি বলেছেন, ‘অবাধ, সুষ্ঠু, গ্রহণযোগ্য নির্বাচন আয়োজনে পুলিশ প্রশাসনের ভূমিকা সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ।’

আমরা বিশ্বাস করি, আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীতে এখনও সৎ, দক্ষ, দেশপ্রেমিক, নীতি-নিষ্ঠা ও আদর্শবান বিপুলসংখ্যক সদস্য রয়েছেন। এখন তাদের নিরপেক্ষভাবে কাজ করার উপযুক্ত সময় ও সুযোগ এসেছে। তাছাড়া ইসি বরাবরই দৃঢ়তার সঙ্গে বলছে, আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচন হবে অবাধ, সুষ্ঠু, নিরপেক্ষ ও গ্রহণযোগ্য। এ জন্য সীমিত পরিসরে হলেও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর পাশে মাঠে থাকবে সেনাবাহিনী।

এ অবস্থায় দেশে টেকসই গণতন্ত্র, আইনের শাসন, মানবাধিকার, স্থিতিশীলতা, উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখা, শান্তি ও কল্যাণের স্বার্থে সুষ্ঠু নির্বাচন আয়োজনে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর নিরপেক্ষ ও যথাযথ ভূমিকা দেখার অপেক্ষায় আছি আমরা দেশবাসী।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো পোস্ট
© All rights reserved © 2021 dainikbanglarmukh
Theme Developed BY ThemesBazar.Com