সোমবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১২:০০ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
আগামী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ৪ নং স্বরুপপুর ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের অন্যতম নেতা বশির আহম্মেদ কে চেয়ারম্যান হিসাবে দেখতে চায় এলাকাবাসী। মহেশপুরে ৪ নং স্বরুপপুর ইউনিয়নের, সর্বস্তরের মানুষের ভালোবাসার আর এক নাম  বশির আহম্মেদ। মহেশপুর সীমান্তে অবৈধভাবে বাংলাদেশে প্রবেশ করায় আটক ১১ আগামী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে সামনে রেখে জনসংযোগে ব্যস্ত-৪নং স্বরূপপুর ইউনিয়নের নৌকা মনোনয়ন প্রত্যাশি বশির আহম্মেদ “স্মৃতিচারণ” ২য় শ্রেণীর দুই ছাত্রীকে যৌন হয়রানি অভিযোগ উঠেছে মাদ্রাসা শিক্ষকের বিরুদ্ধে,শিক্ষক পলাতক! মহেশপুরে ইজিবাইক চালককে পিটিয়ে হত্যা ১৪/০৯/২০২১ তারিখ রাউজানে চট্টগ্রাম জেলা কার্যালয় এর অভিযানে রাউজানে একাধিক মদের মামলার আসামী ১৫ লিটার মদ সহ গ্রেফতার ০১ জন, মামলা দায়েরঃ দ্বীপ উন্নয়ন সংস্থার কর্মপ্রচেষ্টায় প্রাণী সুরক্ষাসেবা কার্যক্রম। জীবননগরে ওষুধের দাম বেশি নেওয়ার অভিযোগ !!!

ঝিনাইদহের জেলা প্রশাসক জাকির হোসেন মধ্যরাতে শীতার্তদের পাশে

দৈনিক বাংলার মুখ ডেস্ক :
  • আপডেট সময় শনিবার, ৬ জানুয়ারী, ২০১৮
  • ৪১৯ বার পড়া হয়েছে

সুলতান আল একরাম,ঝিনাইদহঃ
সারাদেশে চলছে শীতের তীব্রতা। পৌষের এই শেষ সপ্তাহে যখন ঝিনাইদহের ছিন্নমুল মানুষ শীতে কাঁপছে ঠিক সেই সময় গভীর রাতে তাদের পাশে গিয়ে দাড়ালো ঝিনাইদহ জেলা প্রশাসন। বৃহস্পতিবার গভীর রাতে শহরের বিভিন্ন স্থানে শীতার্ত মানুষের মাঝে কম্বল বিতরণ করা হয়।

শহরের বাস টার্মিনাল, পবহাটি, আরাপপুর, চুয়াডাঙ্গা স্ট্যান্ড, পাগলা কানাই মোড়, হামদহ সদর হাসপাতালসহ বিভিন্ন স্থানে শীতার্ত মানুষের মাঝে এ কম্বল বিতরণ করা হয়। সেসময় জেলা প্রশাসক জাকির হোসেন, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) আছাদুজ্জামান, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শাম্মী ইসলাম, এনডিসি জাফর সাদিক চৌধুরী, সদর উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা শুভাগত বিশ্বাসসহ জেলা প্রশাসনের উর্দ্ধতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

বিভিন্ন এলাকার খুপড়ী ঘরগুলোতে অসহায় মানুষদের মাঝে নিজ হাতে শীতবস্ত্র তুলে দেন জেলা প্রশাসক। রাতের আধারে ঘুম থেকে উঠে জেলা প্রশাসকের হাত থেকে অপ্রত্যাশিতভাবে একটি কম্বল হাতে পেয়ে অত্যান্ত খুশি এসব মানুষগুলো। অসহায় মানুষগুলো আবেগ জড়িত কণ্ঠে বলেন, আমাদের এখানে আগে কোনোদিনই কেউ এভাবে শীতবস্ত্র দেয়নি। জেলা প্রশাসক জাকির হোসেন সাংবাদিকদের বলেন, বিত্তবান মানুষ গরম কাপড় ক্রয় করে শীত নিবারণ করলেও গরীব-ছিন্নমূল মানুষেরা টাকা অভাবে ক্রয় করতে পারছে শীতের গরম কাপড়।

তাই অসহায় দরিদ্র, ছিন্নমুল ও নিম্ন আয়ের মানুষের জীবনে নেমে এসেছে চরম দূর্ভোগ। প্রচন্ড ঠান্ডার কারণে দিনমজুর শ্রেনীর মানুষ শ্রমিকের কাজে যেতে পারছে না। রাতে শহরের বিভিন্ন স্থানে শীতার্ত মানুষ শীতে কষ্ট করেন। এরাই প্রকৃত শীতার্ত। তাদের কষ্ট কিছুটা লাঘব করার জন্য রাতে বের হওয়া।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো পোস্ট
© All rights reserved © 2021 dainikbanglarmukh
Theme Developed BY ThemesBazar.Com