বুধবার, ১৮ নভেম্বর ২০২০, ০৭:৩০ অপরাহ্ন

নোটিশ :
সারাদেশের প্রতিটি জেলা ও উপজেলায় সংবাদকর্মী নিয়োগ চলছে। বিস্তারিত জানতে কল করুন : ০১৯২৭৬১৬৪৬৩
সংবাদ শিরোনাম :
ঢাকায় ফেডারেশন অব সার্ক জার্নালিস্ট অর্গানাইজেশনের মতবিনিমিয় সভা মহেশপুরের শ্যামকুড় ইউনিয়নে পুলিশ ইনভেস্টিগেশন ক্যাম্প স্থাপনের উদ্যোগে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত। ঝিনাইদহে দুই সাংবাদিকের নামে মিথ্যা মামলার প্রতিবাদে সমাবেশ ও মানববন্ধন পালিত নোয়াখালী হাতিয়া উপজেলার কৃতি সন্তান মোহাম্মদ খিজির হায়াত বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য নির্বাচিত ঢাকায় আরজেএফ’র উদ্যোগে স্মরণসভা জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের কৃতি ছাত্র হিমেল সাহেব বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সহ সম্পাদক নির্বাচিত হয়েছেন। শরীয়তপুরের ডা. হেলাল উদ্দিন যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের কৃতি ছাত্র জহির উদ্দিন খসরু বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক নির্বাচিত জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের কৃতি ছাত্র মশিউর রহমান চপল বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক নির্বাচিত জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক তিন কৃতি ছাত্র বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক নির্বাচিত।
ঢাকার সড়কে কর্মহীন মানুষের হাহাকার, বাড়ছে করোনার ঝুকি

ঢাকার সড়কে কর্মহীন মানুষের হাহাকার, বাড়ছে করোনার ঝুকি

এস এম জহিরুল ইসলামঃ

রাজধানী ঢাকার সড়কে দিন দিন বাড়ছে কর্মহীন মানুষের হাহাকার। বাড়ছে জটলা। মহল্লা মহল্লায় খুলছে দোকানপাট, হোটেল রেস্তোরাঁ। ফলে প্রতিনিয়তই বাড়ছে মহামারী করোনা ভাইরাসের ঝুঁকি। সোমবার বিকালে সরেজমিনে ঘুরে পল্টন, বিজয় নগর, মতিঝিল ও খিলগাঁও এলাকার গোড়ানসহ বিভিন্ন এলাকার মোড়ে মোড়ে দেখা গেছে কর্মহীন মানুষের জটলা। এরা জানায় সাহায্যের আসায় তারা রাস্তায় অপেক্ষা করছে। এরা বেশীর ভাগই ভাসমান শ্রমিক, ভিক্ষুক ও পরিবহন শ্রমিক। ভুক্তভোগী একজন জানায়, যাদের বাসা আছে তাদেরকেই স্থানীয় কাউন্সিলরসহ এলাকাবাসী ত্রান দেয়। ভাসমানদের কেউ খবরও নেয় না। এই সব জটলাকারীরা করোনা প্রতিরোধে সরকারী কোন নিয়মনীতিই মানছেনা। পড়ছেনা মাস্ক অথবা হ্যান্ডগ্লাবস। হাত ধোঁয়ার তো প্রশ্নই উঠেনা। এই সব ত্রান প্রত্যাশীদের কারনে করোনার ঝুঁকি আরও বাড়তে পারে বলে জানিয়েছেন একজন চিকিৎসক। এ দিকে গোড়ানের অসহায় এক মহিলা বলেন, ত্রান দেওয়ার কথা বলে প্রায় ৫০০ লোককো জড়ো করে কিছু না দিয়েই ফিরিয়ে দেয়া হয়। মিরপুরের স্থানীয় সাংবাদিক রুবিনা বলেন, মিরপুরের বালুর মাঠসহ সব কটি বস্তিতে চলছে সাহায্যের জন্য হাহাকার। স্থানীয়রা কিছু ত্রান দিলেও তা প্রয়োজনের তুলনায় অনেক কম। এ দিকে পাড়া মহল্লায় চায়ের দোকান, হোটেল খোলার ফলে সেখানে বাড়ছে মানুষের ভীড়। ফলে বাড়ছে করোনার ঝুকি। এ বিষয়গুলোর প্রতি প্রশাসনের কঠোর হস্তক্ষেপ নেয়া প্রয়োজন বলে সাধারণ মানুষের ধারনা।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved © 2020 DainikBanglarMukh.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com