বৃহস্পতিবার, ২৬ নভেম্বর ২০২০, ০১:৪৯ পূর্বাহ্ন

নোটিশ :
সারাদেশের প্রতিটি জেলা ও উপজেলায় সংবাদকর্মী নিয়োগ চলছে। বিস্তারিত জানতে কল করুন : ০১৯২৭৬১৬৪৬৩
সংবাদ শিরোনাম :
মাস্ক পরিধান নিশ্চিতে জেলা প্রশাসনের মোবাইল কোর্ট মৌলভীবাজারে শাহজালাল (র.) ওয়েলফেয়ার ট্রাস্টের দোয়া মাহফিল ঢাকায় ফেডারেশন অব সার্ক জার্নালিস্ট অর্গানাইজেশনের মতবিনিমিয় সভা মহেশপুরের শ্যামকুড় ইউনিয়নে পুলিশ ইনভেস্টিগেশন ক্যাম্প স্থাপনের উদ্যোগে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত। ঝিনাইদহে দুই সাংবাদিকের নামে মিথ্যা মামলার প্রতিবাদে সমাবেশ ও মানববন্ধন পালিত নোয়াখালী হাতিয়া উপজেলার কৃতি সন্তান মোহাম্মদ খিজির হায়াত বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য নির্বাচিত ঢাকায় আরজেএফ’র উদ্যোগে স্মরণসভা জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের কৃতি ছাত্র হিমেল সাহেব বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সহ সম্পাদক নির্বাচিত হয়েছেন। শরীয়তপুরের ডা. হেলাল উদ্দিন যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের কৃতি ছাত্র জহির উদ্দিন খসরু বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক নির্বাচিত
শীতের মৌসুমে ত্বকের যত্ন

শীতের মৌসুমে ত্বকের যত্ন

বাংলার মুখ ডেক্স:
শীত মানেই রুক্ষতা আর শুষ্কতার সময়। প্রকৃতি কুয়াশার চাদর গায়ে হীম শীতল বাতাসে জানান দেয় তার অবস্থান। চারপাশের নিস্তব্ধতা আর কনকনে হাড় কাপানো ঠাণ্ডা প্রকৃতিতে নতুন এক আবহের সৃষ্টি করে। শীতের সকাল কিংবা বিকাল সবসময়ের সঙ্গী তখন উষ্ণতার চাদর।

নিজেকে বাইরের ঠাণ্ডা বাতাস আর শীতের তীব্রতা থেকে রক্ষা করতে থাকে নানা প্রস্তুতি। উষ্ণতার চাদর কেবল শীত থেকে আপনাকে সবসময় বাঁচাতে সক্ষম হয়ে ওঠে না। এসময়ের রুক্ষতার ছাপ সবার আগে চোখে পড়ে আপনার ত্বকে। তাই ত্বককে ময়েশ্চার রাখতে চাই সুরক্ষার আবরণ। ত্বকের সুরক্ষায় তাই প্রতিদিনের যত্ন আবশ্যক। ত্বকে তার পুরনো লাবণ্য ফিরিয়ে আনতে কিছু ঘরোয়া টিপস আর প্রতিদিনের সুরক্ষা হতে পারে এ শীতে ত্বক রক্ষাকারী অস্ত্র।

লোশন :

শীতের তীব্রতা সবার আগে চোখে পড়ে ত্বকে। তাই ত্বককে সুরক্ষিত রাখতে চাই লোশন। লোশন ত্বকের ময়েশ্চারাইজারকে অনেকক্ষণ ধরে রাখতে সক্ষম। এতে থাকা নানা উপাদান ত্বকে হারানো উজ্জ্বলতা ফিরিয়ে আনতে এবং ত্বককে মোলায়েম রাখতে সাহায্য করে। লোশন ব্যবহারের আগে অবশ্যই আপনার ত্বক ভালো করে পরিষ্কার করে নিন। এতে করে বাইরে থাকা ধুলাবালি আপনার ত্বকে প্রবেশ করতে পারবে না আর লোশন ব্যবহারের পর তা আপনার ত্বকের কোনোরূপ ক্ষতি করতে পারবে না।

গ্লিসারিন :

শীতে ত্বকের সুরক্ষার আরেকটি নাম গ্লিসারিন। অনেকেই গ্লিসারিন ব্যবহার করতে চান না। সেই ক্ষেত্রে সমপরিমাণ গ্লিসারিন আর পানি মিশিয়ে তা ব্যবহার করলে গ্লিসারিন অনেকটাই পাতলা হয়ে আসে এবং আপনি খুব সহজে তা ব্যবহার করতে পারেন। কেউ কেউ গ্লিসারিনের ব্যবহার করার পর তার চিপচিপে ভাবের জন্য এটি ব্যবহার করেত চান না। সেই ক্ষেত্রে গ্লিসারিন ব্যবহারের পর তোয়ালে দিয়ে তা চেপে চেপে মুছে নিলে এর হাত থেকে রেহাই পাওয়া সম্ভব।

ভ্যাসলিন :

শীতের রুক্ষতা থেকে ত্বককে সুরক্ষা করতে আপনাকে অনেকাংশে সাহায্য করতে পারে ভ্যাসলিন। নিয়মিত দিনে দুই থেকে তিনবার ব্যবহার করলে আপনার ত্বকে থাকা ফাটা স্থান যেমন আগের রূপ তাড়াতাড়ি ফিরে পাবে, তেমনি আপনার ত্বক তার লাবণ্যময়তা ধরে রাখতে পারে দীর্ঘ সময় পর্যন্ত।

অলিভ অয়েল : শীতে আপনার ত্বক যখন নির্জীব, তখন তাকে প্রাণবন্ত করে তুলতে পারে অলিভ অয়েল। যারা ত্বকে খুব হালকা কিছু ব্যবহার করতে চান তারা অলিভ অয়েল ব্যবহার করতে পারেন। সেই ক্ষেত্রে রাতে ঘুমানোর আগে আপনি অলিভ অয়েল ব্যবহার করতে পারেন।

পেট্রোলিয়াম জেলি :

শীতে ঠোঁট ফাটা খুব স্বাভাবিক বিষয়। তবে এটি দেখতে খুব একটা স্বাভাবিক নয়। এ শীতে তাই ঠোঁটের যত্নে সঙ্গী হতে পারে পেট্রোলিয়াম জেলি। এটি আপনার ঠোঁটকে যেমন সুরক্ষিত রাখবে তেমনি তাতে সৃষ্ট হওয়া কালো দাগ খুব সহজে দূর করে আপনাকে দেবে কোমল ঠোঁট আর প্রাণবন্ত হাসি।

সানক্রিম :

শীতের মিষ্টি রোদ গায়ে মাখতে আমরা সবাই কম-বেশি ভালোবাসি। তবে এ রোদ খুব বেশি সময় ধরে ত্বক স্পর্শ করলে সানবার্নের প্রবণতা থাকে। তাই শীতে আপনার প্রতিদিনের সঙ্গী করে নিতে পারেন সানক্রিম। এতে করে এ শীতেও আপনার ত্বক থাকবে সুরক্ষিত আর প্রাণবন্ত।

শীতের সময় বাইরে ধুলাবালি থাকে সবচেয়ে বেশি। তাই সবসময় ত্বক পরিষ্কার আছে কিনা সেই দিকে লক্ষ রাখুন। ত্বকের সুরক্ষায় আর্দ্রতা থেকে বাঁচাতে প্রচুর পানি পান করুন। শীতের মৌসুমি ফল, শাক-সবজি আপনার প্রতিদিনের খাবার তালিকাতে রাখুন। এতে করে আপনার ত্বক ভেতর দিক থেকে যেমন থাকবে সুস্থ, তেমনি বাইরের দিক থেকেও থাকবে সজীব, উজ্জ্বল আর প্রাণবন্ত

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved © 2020 DainikBanglarMukh.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com